অপটিক্যাল ফাইবার একধরনের পাতলা, স্বচ্ছ তন্তু সাধারণত কাঁচ বা প্লাস্টিকের হয়। অপটিক্যাল ফাইবার দিয়ে লম্বা দুরত্বে অনেক কম সময়ে বেশি পরিমাণ তথ্য পরিবহন করা যায়। ফাইবার অপটিক্যাল তৈরি করতে সোডা বারো সিলিকেট, সোডা অ্যালুমিনা সিলিকেট, সোডা লাইম সিলিকেট ইত্যাদি কাচগুলো দিয়ে ব্যবহার হয়। সাধারণত ফাইবার অপটিক্যালের তিনটি অংশ থাকে কোর, ক্ল্যাডিং, জ্যাকেট।

 

ফাইবার  অপটিক্যালের বৈশিষ্টঃ

১। ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবলে EMI নেই বলে এটি সব স্থানে ব্যবহার করা যায়। কোন ইলেকট্রিক্যাল ওয়ার্কশপের মাঝে নেটওয়ার্ক তৈরি করতে হলে একমাত্র ফাইবার অপটিক্যাল ব্যবহার করতে পারা যায়।

২। ফাইবার অপটিক্যাল ইলেকট্রিক্যাল সিগনালের পরিবর্তে আলোক বা লাইট সিগনাল ট্রান্সমিট করে।

৩। ফাইবার অপটিক্যাল Gbps রেঞ্জ বা তার চেয়ে বেশি গতিতে ডেটা ট্র্যান্সফার করতে পারে।

৪। নেটওয়ার্কের ব্যাকবোন হিসেবে ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল অধিক ব্যবহার হয়।

 

ফাইবার  অপটিক্যালের সুবিধাঃ

১। অপটিক্যাল ফাইবার উচ্চ ব্যান্ডউইডথ সম্পন্ন হয়।

২। অপটিক্যাল ফাইবার নির্ভুল ডেটা আদান-প্রদান করে।

৩। অপটিক্যাল ফাইবার EMI হতে মুক্ত।

৪। আকারে ছোট, ওজন অত্যন্ত কম হওয়াই সহজে পরিবহনযোগ্য।

৫। অপটিক্যাল ফাইবারে ডেটা সংরক্ষণ ও গোপনীয়তা অনেক বেশি।

 

অপটিক্যাল ফাইবার জোড়া দেওয়ার জন্য সাধারণত স্প্লাইসার মেশিন ব্যবহার করা হয়। এই মেশিন বেশ দামি এবং এর সাহায্যেই ইন্টারনেট প্রোভাইডার কোম্পানিগুলো ইন্টারনেট সংযোগ দিয়ে থাকে।

তথ্যসুত্রঃ বিডিস্টল

Share Button