সংবাদদাতা: শুক্রবার (২ অক্টোবর) দাগনভূঞায় ইউএনওর হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো বাল্য বিয়ে। পৌর এলাকার একটি কমিউনিটি সেন্টারে এ বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা চলছিল। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে গেলে সকল অনেকেই ভয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে  দাগনভূঞা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রীর বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হাসান।
এসময় তিনি বরপক্ষ ও কনে পক্ষকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া জাল জন্ম নিবন্ধন সনদ বানিয়ে সংরক্ষণ ও মেয়েকে বিয়ে দেবার অপরাধে মেয়ের চাচাকে ৩ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। মেয়ের আঠার বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দিয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাবার মুচলেকা দিয়ে দুই পক্ষ ছাড়া পায়।
Share Button