নিজস্ব প্রতিবেদক: ফেনীতে এক প্রবাসীকে গলাকেটে হত্যার পর ২ সন্তান নিয়ে পলাতক রয়েছে স্ত্রী। ধারণা করা হচ্ছে পরকীয়ায় আসক্ত হয়ে স্বামীকে অচেতন করে হত্যার পর পালিয়ে যায় ঘাতক স্ত্রী। পুলিশ স্থানীয়দের সহযোগিতায় শুক্রবার (২০ অগাস্ট) সকালে সোহেলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে।
জানা গেছে, ফেনী শহরের নাজির রোডের একটি ভবনের ৬ তলায় ২ সন্তান নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের গুণবতী এলাকার খাটারা গ্রামের দুবাই প্রবাসী সোহেল রানার (৩৫) স্ত্রী শিউলি ২৮)। গত ১ মাস আগে সোহেল দেশে ছুটি কাটাতে আসেন। ১ মাস পরই স্ত্রীর হাতে নির্মম হত্যাকান্ডের শিকার হলেন তিনি।
ঐ বাড়ির দারোয়ান জানান, বৃহস্পতিবার রাতেই শিউলি তার ২ সন্তান নিয়ে হন্তদন্ত হয়ে বেরিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় দারোয়ানের মুখোমুখি হলে তার বাবা মারা গেছেন বলে জানান।
সোহেলের পরিবারের অভিযোগ, ঘাতক শিউলি তাদের ছেলেকে হত্যা করে রাতেই কোন পরকীয়া প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়েছে। ঘাতককে দ্রুত আটক করে আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেন তারা।
নিহত সোহেল ও ঘাতক শিউলির দাম্পত্য জীবনে ৭ বছরের একটি ছেলে ও ৪ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। ফেনী মডেল থানার ওসি নিজাম উদ্দিন জানান, হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে ছুটে গেছে। লাশের প্রাথমিক সুরতহাল নেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য পুলিশ লাশটি ফেনী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।
শাহাদাত হোসাইন

Share Button